ছোটাছুটি

ঘুরতে গেলে তাদেরও নিন

বয়স হয়ে গেলেই কি আর ঘোরাঘুরি করা যায় না? ধারণাটা একদম ভুল

 

অনেকে সপরিবারে বেড়াতে যেতে ভালবাসেন। কিন্তু বাড়ির বয়স্কদের শারীরিক অবস্থার ফলে চিন্তায় পড়তে হয়। তাই বলে আপনার ভ্রমণ পরিকল্পনায় বাড়ির বয়স্করা কি বাদ যাবেন? তাদের নিয়েও কিন্তু ঘোরা যায়। শুধু লক্ষ্য রাখতে হবে—

  • বেড়াতে যাওয়ার আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। বিশেষ করে পাহাড়ে গেলে, চেক আপ করে নিন হার্টের অবস্থা দুর্গম এলাকাতে যাওয়াতে কোনরকম বাধা তৈরি করতে পারে কি না। য়েখানে যােন, সেই জায়গার আবহাওয়া অনুযায়ী কী খেতে হবে তা দেখে নিন। দরকার পড়লে কোনও ভ্যাক্সিন দিন।
  • পোশাক প্যাক করার আগেও, ওষুধ প্যাক করুন। সঙ্গে চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন এবং রিপোর্টও নিন। বেড়াতে গিয়ে শরীর খুব খারাপ করলে এই কাগজপত্রগুলির প্রয়োজন পড়বে। ওখানকার চিকিৎসকেরও রোগীর সমস্যা তাড়াতাড়ি বুঝতে সুবিধা হবে।
  • ট্রেনে গেলে অবশ্যই বাড়ির বয়স্ক যাত্রীদের লোয়ার বার্থে শোয়ার ব্যবস্থা করে দিন। এসি ট্রেনে যান পারলে। লাগেজ বেশি থাকলে তার জন্য কুলি ভাড়া করুন। ফ্লাইটে গেলে হুইল চেয়ারও নিতে পারেন।
  • প্রবীণ নাগরিকরা বিমানবন্দরে সহযোগীতা পান। সেইজন্যই সিকিউরিটি চেকেও প্রবীণ নাগরিকরা ছাড় পেতে পারেন। যাঁদের পেসমেকার বসানো, তাঁরাও সিকিউরিটি চেকের সময়ে চেকিং প্রক্রিয়া আস্তে করতে অনুরোধ করুন।
  • বেড়াতে গিয়ে চেষ্টা করুন, হোটেলের একতলা বা দোতলায়ে থাকার। তার বেশি উপরে থাকলে দেখুন, হোটেলে লিফট রয়েছে কি না। এসি ঘরেই বয়স্ক সগস্যদের থাকতে দিন।
  • হোটেলে বলুন হালকা খাবার পরিবেশন করতে। মশলাদার খাবার এড়িয়ে চলুন।
  • অনেক জায়গায় একটু বেশি রাত হলেই, খাবার পাওয়া যায় না। তার জন্য, যথেষ্ট পরিমাণে বিস্কুট, কাজু বাদাম, কিসমিস, ফল ইত্যাদি রাখুন।
  • বয়স্ক সদস্যদের ধূমপান আর মদ্যপান করতে দেবে না।
  • ঘুরতে বেরলে, সন্ধে হওয়ার আগেই হোটেলে ফিরুন।
Facebook Twitter Google+ Pinterest
More
Reddit LinkedIn Vk Tumblr Mail
Facebook